পশুপালন

প্রতিরক্ষা ও নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতির মাধ্যমে ব্যাপক পশুচিকিত্সা স্বাস্থ্যবিধি দ্বারা রাষ্ট্রের পশুসম্পদ এবং পাখিদের সম্পদকে রক্ষা করা। পশু উত্স খাদ্য অর্থাৎ দুধ, মাংস ও ডিম এবং বেকার যুবকদের জন্য স্বনির্ভর যুবকদের জন্য সুযোগ তৈরির পাশাপাশি স্বনির্ভরতার দিকে অগ্রসর হওয়া। বিভিন্ন পশুপালন কার্যক্রমের মাধ্যমে কৃষকদের অতিরিক্ত আয় আনত

পশুপালন
ক্রমিক সংখ্যা বিবরণ সংখ্যা পশ্চিম জেলা
1 ভেটেরিনারি হাসপাতালের সংখ্যা 02
2 ভেটেরিনারী ডিসপেন্সারি এর সংখ্যা 08
3 ভেটেরিনারি সাব সেন্টারের সংখ্যা (প্রথম এইড সেন্টার/স্টকম্যান সেন্টার) 87
4 ভেটেরিনারি এআই সেন্টারের সংখ্যা 0
5 ডিআই ল্যাবরেটরি 01
6 ফিড বিশ্লেষণাত্মক ল্যাবরেটরি 01
7 ভেটেরিনারি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট 01
8 খাদ্য মিশ্রণ প্ল্যান্ট 02
9 ভেটেরিনারী মেডিসিন স্টোর 01
10 ফ্রোজেন সিমেন ব্যাংক 01
11 শূকর প্রজনন খামারের সংখ্যা 01
12 ছাগলের প্রজনন খামারের সংখ্যা 0
13 খরগোশ প্রজনন খামারের সংখ্যা 01
14 হাঁস প্রজনন খামারের সংখ্যা 01
15 পোল্ট্রি প্রজনন ফার্মের সংখ্যা 02
16 গবাদি পশুর খামারের সংখ্যা 01
17 ব্লক লেভেল ব্রুডার হাউস সংখ্যা (এলএলবিএইচ) 08
18 সরকারী ফডার খামার 02